বিকাশ পিন লক হলে করণীয় | সহজ সমাধান

বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি আমরা অনেকেই জানি না। আমরা অনেকেই বিকাশ পিন লক সমস্যায় পরে থাকি। এবং এর ফলে আমরা অনেক টেনশনে থাকি। টেনশনটা আরো বেরে যায় যখন এই পিন লক হওয়া বিকাশ একাউন্টে টাকা থাকে। পিন লক হলে টেনশনের কোনো কারন নেই, আপনার একাউন্ট আপনি ফিরে পাবেন। তবে, তার জন্য আপনাকে বিকাশ হেল্পলাইনে যোগাযোগ করে সম্পুর্ন বিষয়টা খুলে বলতে হবে।

বিকাশ পিন লক হলে করণীয়

বিকাশ-পিন-লক

যেভাবে আপনার বিকাশের পিন আনলক করবেন: পিন আনলক করতে হলে প্রথমে আপনাকে ১৬২৪৭ নাম্বারে কল দিতে হবে। তারপর, তারা আপনাকে

কিছু অপশন বাছাই করতে বলবে। তাদের বলা শেষ হলে ১ অথবা ২ চাপুন। তারপর, ১০ চাপুন। এখন আপনার সাথে একজন কাস্টমার সার্ভিস প্রতিনীধি আপনার সাথে সরাসরি কথা বলবে। এবং আপনার কাছ থেকে কিছু তথ্য জানতে চাইবে। আপনি সবগুলো তথ্য সঠিকভাবে দিতে পারলে আপনার একাউন্টি তারা সাথেসাথে আনলক করে দিবে।

কাস্টমার কেয়ারে কল দেওয়ার পূর্বে করনীয়:

  • আপনি যেই সিম দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলেছেন সেই সিমটি দিয়ে কাস্টমার কেয়ারে কল করুন।
  • যেই ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে বিকাশ একাউন্টটি খুলেছেন সেই ভোটার আইডি কার্ডটি সাথে রাখুন। সেই ভোটার আইডি কার্ডটি যদি সাথে না থাকে তাহলে ভোটার আইডি কার্ডের নাম্বারটি লিখে রাখুন।
  • শেষ কত টাকা বিকাশ করেছেন এবং কোন নাম্বারে বিকাশ করেছেন সেটি লিখে রাখুন।

বি.দ্র: উপরে দেওয়া এই সব তথ্যগুলো বিকাশ হেল্পলাইনে কল দিলে আপনার কাছ থেকে জানতে চাইবে। আপনি যদি সঠিকভাবে সবগুলো তথ্য দিতে পারেন তাহলে আপনার একাউন্টটি তারা সাথে সাথে আনলক করে দিবে।

এগুলো পরতে পারেন:

Bkash customer care number

Bkash balance check code

প্রশ্ন: বিকাশ পিন লক আনলক হলে আমি কি আমার একাউন্টে থাকা সব টাকা ফিরে পাবো?

উত্তর: হ্যা, আপনার একাউন্টে থাকা সব টাকা আপনি ফিরে পাবেন।

প্রশ্ন: বিকাশ একাউন্টের পিন আনলক করতে এত তথ্য লাগে কেন?

উত্তর: ধরুন, একজন প্রতারক বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে আপনার একাউন্টটি তার বলে দাবি করল। তখন বিকাশ থেকে এই তথ্যগুলো জানতে চাইবে। যখন সে দিতে পারবে না, তখন তাকে একাউন্ট দেওয়া হবে না। সতরাং, আপনার একাউন্টের সুরক্ষার জন্যই এই তথ্যগুলো তারা জানতে চায়।

অতএব, আপনি বুঝতে পেরেছেন বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি। এই আর্টিকেলের মাধ্যমে যদি আপনি উপক্রিত হয়ে থাকেন, তাহলে অনুগ্রহ করে একটি কমেন্ট করে যান। এতে আমরা আরো লিখতে উৎসাহ পাই।

Leave a Reply